Eid MubarakFestival

কুরবানির প্রস্তুতি -কুরবানিতে করণীয় ও বিশেষ আমল

ঈদ মোবারক! ক্যাম্পাস প্রতিদিন এর সকল পাঠক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আজকের আয়োজন। আজকে আমরা আমাদের আয়োজনে ঈদ মোবারক পিকচার, ঈদ মোবারক ছবি, ঈদ মোবারক ফটো কালেকশন, ঈদ মোবারক মেসেজ, ঈদ মোবারক উক্তি, ঈদ মোবারক অনুচ্ছেদ, ঈদ মোবারক স্ট্যাটাস, ঈদ মোবারক ফেসবুক স্ট্যাটাস প্রভৃতি বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করবো। আধুনিক যুগে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা বন্ধ-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন, দেশ-বিদেশের সকলের কাছে ঈদের শুভেচ্ছা জানায়। এজন্য সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ঈদ শুভেচ্ছা জানাতে আপনাদের জন্যই আমাদের এই আয়োজন, আজকের এই পোস্টে আমরা যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা হলো:ঈদের নামায পড়ার সঠিক নিয়ম

 কুরবানির প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি

মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎসব হল ঈদুল আযহা। ঈদুল আযহার অন্যতম অবশ্য পালনীয় কর্তব্য হলো আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে পশু কুরবানি করা। তবে যারা কুরবানি দিবেন তাদের জন্য ইসলামে রয়েছে কিছু বিশেষ দিক-নির্দেশনা। যেমন, কুরবানির পশু জবাই, গোশত বন্টন ইত্যাদি। এসব বিষয়াদি নিয়ে কিছু জরুরি ও বিশেষ পরামর্শ সহকারে আলোচনা করা হল।

  •  অন্তরকে শুদ্ধ করা 

আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন-لن ينال الله لحومها ولا دمائها ولكن يناله التقوى منكم (তরজমা) (মনে রেখো, কুরবানির জন্তুর) গোশত অথবা রক্ত আল্লাহর কাছে কখনোই পৌঁছে না; বরং তাঁর কাছে কেবলমাত্র তোমাদের পরহেযগারিই পৌঁছে। (সূরা হজ্ব : ৩৭)

কোরবানির মূল শিক্ষা তাকওয়া অর্জন ও আত্মার সংশোধন। বাহ্যিকভাবে কোরবানিদাতার মনের ভিতরের অবস্থা অনুধাবন করা যায় না। এটি সম্পূর্ণ যার যার অন্তরের ব্যাপার। অন্তর যদি মানুষের বিশুদ্ধ হয় তাহলে গোটা দেহই বিশুদ্ধ হয়ে যায়।

কোরবানির মাধ্যমে আল্লাহ অন্তর দেখে বান্দার বিচার করেন। কার অন্তর কতটা স্বচ্ছ ও সুন্দর আল্লাহর কাছে তা পরীক্ষা দেওয়ার উপযুক্ত সময় হল কোরবানি।

আমাদের চিন্তা করা উচিৎঃ প্রতি বছর কোরবানি আসে আবার চলে যায়, কিন্তু আমাদের ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে এর ফলাফলটা কী হয় ? জীবনে বহুবার পশু জবেহ করার মাধ্যমে কোরবানির ঈদ পালন করেছি, কিন্তু আমার কোরবানি কবুল হয়েছে কি? কেন হয়নি তা কি ভেবে দেখেছি? এর থেকে কী শিক্ষা গ্রহণ করেছি?

  • উত্তম পশু কুরবানির জন্য নির্ধারণ করা

গরু, মহিষ, উট, ছাগল, ভেড়া, দুম্বা এ শ্রেণির প্রাণী দ্বারা কোরবানি করা যায়। তবে কুরবানির পশু প্রাপ্ত বয়স্ক ও সুস্থ সবল হতে হবে। রোগাক্রান্ত ও ক্রুটি যুক্ত প্রাণী কুরবানি করা যাবে না।

এক হাদিসে এসেছে, হজরত জাবের ইবনে আব্দুল্লাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘কুরবানিতে তোমরা শুধু পরিপূর্ণ বয়সের পশু জবাই কর। তবে যদি পূর্ণ বয়সের পশু যোগাড় করতে তোমাদের কষ্ট হয়, তাহলে ছয় মাস বয়সের দুম্বা জবাই কর।’ (আবু দাউদ)

হাদিসে ‘মুসিন্নাহ’ পশু জবেহ করার কথা বলা হয়। মুসিন্নাহ বলা হয় ঐ পশুকে, যে পশুর দাঁত উঠেছে। ফোকাহায়ে কেরাম কুরবানির পশু উপযুক্ত হওয়ার জন্য বয়সের একটি সীমা বর্ণনা করে দিয়েছেন। তাহলো-

– উট : ৫ বছর।
– গরু/মহিষ : ২ বছর।
– ছাগল/ভেড়া/দুম্বা : ১ বছর। (দুররুল মুখতার)

  • নির্ধারিত পশুকে কোরবানি করা 

ঈদের দিন সকালে কিছু না খেয়ে ঈদ এর নামায আদাই করার পর কুরবানি করা উচিৎ। নিজেই কুরবানির পশু জবাই করা উত্তম। নিজে না পারলে জবাইয়ের সময় স্বশরীরে উপস্থিত থাকুন। ছুরি ভালোভাবে ধার করে নিন। যিনি ছুরি চালাবেন তিনি ছুরি চালানোর সময়- ‘বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার’- বলবেন।

জবাইয়ের পূর্বে পশুকে ভালোভাবে দানা-পানি খেতে দিতে হবে। পশুকে কেবলার দিক মুখ করে শোয়াতে চেষ্টা করুন। পশু পড়ে যাওয়ার পর টানা-হেচড়া করবেন না। কেননা পশুকে কষ্ট দেওয়া উচিৎ না।

  • কোরবানির গোস্ত সঠিক উপায়ে ব্যবস্থাপনা করা

জবাই করা ও গোশত বানানোর জন্য কসাইর পারিশ্রমিক আগে থেকেই ঠিক করে নিন। মনে রাখবেন, কোনোভাবেই কুরবানির মাংস দিয়ে কসাইর পারিশ্রমিক পরিশোধ করা যাবে না।

কুরবানির গোশত  আত্মীয়-স্বজন, গরিব-মিসকিন এবং নিজের ও পরিবার-পরিজনদের জন্য রাখুন। ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের কুরবানির গোশত উপহার দেওয়া যায়।

কোরবানি ঈদের আরেকটি শিক্ষা হলো– একা একা ঈদ আনন্দ উপভোগ না করা। ঈদ মানে আনন্দ। নিজের আনন্দে গরিবদেরও শরিক করা। সাধ্যমতো তাদের মুখে একটু সুখের নির্মল হাসি ফোটাতে প্রাণান্তকর চেষ্টা করা।আমাদের উচিত কোরবানির শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে জীবনকে সুন্দর ও সুখময় করে গড়ে তোলা।কুরবানির প্রকৃত শিক্ষায় দূর হোক সমাজের সব কুটিলতা!

কোরবানির ইতিহাস :

কোরবানির ইতিহাস অতি প্রাচীন।কুরবানি একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত। আদম আ. থেকে সকল যুগে কুরবানি ছিল। তবে তা আদায়ের পন্থা এক ছিল না। শরিয়াতে মুহাম্মাদির কুরবানি মিল্লাতে ইবরাহিমির সুন্নত। সেখান থেকেই এসেছে এই কুরবানি।সৃষ্টির প্রথম মানব আমাদের আদি পিতা হযরত আদম (আঃ) এর দু’পুত্র হাবিল ও কাবিল সর্বপ্রথম কোরবানি করেন। মহান আল্লাহ পাক ইব্রাহিম (আঃ) কে তাঁর শেষ বয়সে প্রিয়তম পুত্র ইসমাঈল (আঃ) কে কোরবানি করার নির্দেশ দেন।

হযরত ইব্রাহিম (আঃ) ৮৫ বছর বয়সে পুত্র হযরত ইসমাঈল (আঃ) কে পান। এ অবস্থায় নিজ প্রিয় পুত্রকে কোরবানি দেয়া এক কঠিন পরীক্ষা। কিন্তু তিনি তাঁর মহান রবের হুকুমের উপর নত হলেন। নিষ্পাপ পুত্র ইসমাঈল (আঃ) ও নিজেকে আল্লাহর রাহে বিলিয়ে দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নেন। একপর্যায়ে পিতা তাঁর পুত্রকে জবাই করতে যখন উদ্যত ঠিক তখনই মহান আল্লাহর কাছে ঈমানের কঠিন পরীক্ষায় তিনি উত্তীর্ণ হলেন।মহান আল্লাহর উদ্দেশে প্রিয়বস্তুকে উত্সর্গের মাধ্যমে তাঁর সন্তুষ্টি লাভের যে অনুপম দৃষ্টান্ত হযরত ইব্রাহীম (আঃ) স্থাপন করে গেছেন, তা বিশ্ববাসীর কাছে চিরকাল অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় হয়ে থাকবে। হযরত ইব্রাহীম (আঃ) এর অনুপম ত্যাগের অনুসরণে হাজার হাজার বছর ধরে বিশ্ব মুসলমানরা কোরবানি করে আসছেন।

আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের শর্তহীন আনুগত্যের শিক্ষা রয়েছে কুরবানীতে। পাশাপাশি আল্লাহ তাআলার জন্য ত্যাগ ও বিসর্জনের ছবকও আছে এতে। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন-فصل لربك وانحر (তরজমা) অতএব আপনি আপনার রবের উদ্দেশ্যে নামায পড়ুন এবং কুরবানী আদায় করুন। (সূরা আনআম:২)

অন্য আয়াতে এসেছে-قل ان صلاتى ونسكى ومحياى ومماتى لله رب العالمين. (তরজমা) (হে রাসূল!) আপনি বলুন, আমার নামায, আমার কুরবানি, আমার জীবন, আমার মরণ (অর্থাৎ আমার সবকিছু) আল্লাহ রাববুল আলামীনের জন্য উৎসর্গিত। (সূরা আনআম: ১৬২)

ঈদের দিন মুমিন মুসলমানের গুরুত্বপূর্ণ করণীয় কিছু বিশেষ আমলঃ

১. মিসওয়াক ও গোসল করা

২. উত্তম পোশাক পরিধান

৩. নামাজের আগে কিছু না খাওয়া

৪. ঈদগাহ থেকে ফেরার পথে রাস্তা পরিবর্তন করা

৫. পায়ে হেঁটে ঈদগাহে যাওয়া-আসা

৬. ঈদগাহে যাওয়া-আসার পথে তাকবির বলা

اَللهُ اَكْبَر اَللهُ اَكْبَر لَا اِلَهَ اِلَّا اللهُ وَ اَللهُ اَكْبَر اَللهُ اَكْبَر وَ للهِ الْحَمْد
উচ্চারণ : আল্লাহু আকবার আল্লাহু আকবার লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার আল্লাহু আকবার ওয়া লিল্লাহিল হামদ।’
অর্থ : ’আল্লাহ মহান, আল্লাহ মহান; আল্লাহ ছাড়া কোনো ইলাহ নেই; আল্লাহ মহান, আল্লাহ মহান; সব প্রশংসা মহান আল্লাহ জন্য।’

৮. শিশুদের ঈদগাহে নিয়ে যাওয়া

৯. ঈদগাহে নামাজ আদায়

১১. ঈদের দিন কবর জিয়ারত করা উত্তম 

১২. কুরবানি আদায় করা

Thanks to everyone for visiting our website! You can visit our website first to get all the information related to education. Every day we publish education information as well as job news, results, routines, admission information, assignments, success stories, and necessary information of daily life. If you want to connect with us on Facebook, visit: Page: ক্যাম্পাস প্রতিদিন and Group ক্যাম্পাস প্রতিদিন

Related Articles

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker